মালামাল আনলোডে চাঁদার দাবি, ব্যবসায়ীদের আল্টিমেটাম

প্রতিনিধি :: মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে পাইকারী ব্যবসায়ির মালামাল আনলোডে মালবহনকারী ট্রাকড্রাইভারের কাছে চাঁদা দাবি ও মারধরের ঘটনা নিয়ে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে।
এঘটনায় জড়িত পরিবহন শ্রমিক লিটন ওরফে কুইচ্চা লিটনকে গ্রেফতারের দাবি জানিয়ে স্থানীয় প্রশাসনের প্রতি ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম বেঁধে দিয়েছে শ্রীমঙ্গল ব্যবসায়ি সমিতি।
বেঁধে দেয়া এই সময়ের মধ্যে তাকে গ্রেফতার করা না হলে সাধারণ ব্যবসায়িদের নিয়ে সকল ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে ধর্মঘটসহ হরতাল-অবরোধের মতো কঠোর কর্মসূচী ডাক দেয়া হবে বলে হুমকি দেয়া হয়।
সন্ত্রাসী লিটন শহরতলীর শাহীবাগ আবাসিক এলাকার মৃত বাবুল মিয়া ছেলে।
শুক্রবার বিকেল ৫টায় ব্যবসায়ি সমিতির কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক জরুরী সভা শেষে ব্যবসায়ি সমিতির পক্ষে এ আল্টিমেটাম ঘোষনা করেন  শ্রীমঙ্গল ব্যবসায়ি সমিতির সম্পাদক মো.কামাল হোসেন।
ব্যবসায়ি সমিতির সভাপতি এএসএম ইয়াহিয়া’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত জরুরী সভায় বক্তব্য রাখেন- ব্যবসায়ি সমিতির সহ-সভাপতি মো.শামীম আহমেদ,সাধারণ সম্পাদক মো.কামাল হোসেন, যুগ্ম সম্পাদক আক্তার হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল ইসলাম জুয়েল, কোষাধ্যক্ষ আব্দুল বাছিত, কার্যকরি সদস্য জসিম উদ্দিন, পরিমল পাল, ফাহাদ আব্দুল কাদির, পৌর কাউন্সিলর মীর এম এ সালামসহ সাধারণ ব্যবসায়িরা।
সভায় বক্তারা প্রকাশ্যে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালামাল আনলোডে চাঁদা দাবি করে ট্রাক ড্রাইভার ও দোকান শ্রমিককে মারধর, মালামাল ড্রেনে ফেলে নষ্ট করার ঘটনাকে সন্ত্রাসীকর্মকান্ড বলে আখ্যায়িত করেন। লিটন (৩৮) পেশায় একজন পরিবহন শ্রমিক। পরিবহন শ্রমিক হয়ে বহিরাগত ট্রাক ড্রাইভারের কাছে সে ২০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করতে পারে না। ব্যবসায়ি নেতারা সন্ত্রাসী লিটন ওরফে কুইচ্চা লিটনকে অবিলম্বে গ্রেফতার পূর্ব্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানান। সভা শেষে ব্যবসায়ি সমিতির নেতৃবৃন্দরা স্থানীয় এমপি উপাধ্যক্ষ ড. মো. আব্দুস শহীদ মিশনরোডের বাসভবনে গিয়ে বিস্তারিত ঘটনা অবহিত করেন। এসময় এমপি ব্যবসায়িদের শান্ত থাকার আহবান জানান এবং এ বিষয়ে প্রশাসনকে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশনা প্রদান করেন।
জানা যায়, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টারদিকে শ্রীমঙ্গল ব্যবসায়ী সমিতির কার্যকরি কমিটির সদস্য পরিমল পালের শাপলাবাগের ব্যবসা প্রতিস্টান পূজন ট্রেডার্সে ঢাকা থেকে  ট্রাক যোগে নিয়ে আসা চিটা গুড় এর গাড়ী আনলোডকালে ট্রাকড্রাইভার হারুনুর রশিদের কাছে সন্ত্রাসী লিটন ওরফে (কুইচ্চা লিটন) ২০ হাজার টাকা চাঁদা চায়। চাঁদা না দিলে গাড়ীতে আগুন লাগিয়ে দেওয়ার হুমকি দেয়। এসময় ট্রাক ড্রাইভার চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে তাকে এলোপাতাড়ি মারধর করে এবং ট্রাকে নিয়ে আসা ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ৫০ হাজার টাকার চিটাগুড় ড্রেনে ফেলে নষ্ট করে। এ ঘটনায় রাত ১২টারদিকে ব্যবসায়ি  পরিমল পাল বাদী হয়ে শ্রীমঙ্গল থানায় লিটন ওরফে কুইচ্চা লিটনকে আসামী করে লিখিত অভিযোগ দেন।
শ্রীমঙ্গল ব্যবসায়ি সমিতির কার্যকরি কমিটির সাধারণ সম্পাদক কামাল হোসেন জানান, পূজন ট্রেডার্সের চিটাগুড় ঢাকা থেকে ট্রাকযোগে নিয়ে আসছিল। চাঁদা না দেয়ায় ট্রাক ড্রাইভারের মাথায় এবং মাল আনলোডকারী শ্রমিকের হাতের কব্জিতে জখম করে গুরুতর আহত করে। ট্রাক ড্রাইভারের কাছে থাকা নগদ ৬ হাজার ৭০০টাকা নিয়ে যায় এবং ট্রাকের ৫০ হাজার টাকার মালামাল ড্রেনে ফেলে দেয়। এ ঘটনার প্রতিবাদে রাতেই শ্রীমঙ্গল শহর ও শহরতলীতে মাইকিং বের করে জরুরী সভার ডাক দেয় শ্রীমঙ্গল ব্যবসায়ী সমিতি। সভায় ব্যবসায়িদের মতামত নিয়েই এ আল্টিমেটামের ঘোষনা দেয়া হয়।
তিনি বলেন, দুই একজন সন্ত্রাসীর কাছে ব্যবসায়িরা জিম্মি থাকতে পারে না। আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে যদি আসামী না ধরা হয় তাহলে আমরা সকল ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ধর্মঘট, অবরোধ, হরতালসহ কঠোর কর্মসূচীর ডাক দেয়া হবে।
জানতে চাইলে শ্রীমঙ্গল থানার অফিসার ইনচার্জ মো.আব্দুছ ছালেক মুঠো ফোনে বলেন, এ ঘটনায় মামলা রজু করা হয়েছে। তাকে গ্রেফতার করতে পুলিশ সর্বাত্মক প্রচেষ্ঠা চালিয়ে যাচ্ছে।

 

শেয়ার করুন