মৌলভীবাজারে মবশ্বির-রাবেয়া ট্রাস্টের উদ্যোগে ৫ দিনব্যাপী ফ্রি চক্ষু শিবির

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি.

মৌলভীবাজার পৌর শহরেরর পশ্চিম ধরকাপনে মবশ্বির-রাবেয়া ট্রাস্টের উদ্যোগে সপ্তমবারের মতো পাঁচদিন ব্যাপী ফ্রি চক্ষু শিবির কার্যক্রম শুরু হয়েছে।
চক্ষু শিবিরে বিনামূল্যে দৃষ্টিশক্তি পরীক্ষা শেষে চোখের ছানিপড়া ১৩৫ জন ও চোখের নেত্রনালী (ডিসিআর) ৬৭ জন রোগীকে অপারেশনের জন্য বাছাই করা হয়।

শনিবার ১ ফেব্রুয়ারি সকালে মৌলভীবাজার বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতালের চিকিৎসা ব্যবস্থায় ফ্রি চক্ষু শিবিরের প্রধান অতিথি হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন মৌলভীবাজার ৩ আসনের সংসদ সদস্য মো. নেছার আহমদ।
প্রধান অতিথি তার ভাষনে বলেন,এককভাবে দেশ এবং সরকার এগিয়ে যেতে পারে না। মবশ্বির রাবেয়া ট্রাষ্ট যেভাবে চিকিৎসা সেবা গরীবদের দিচ্ছে তেমনি সমাজের বৃত্তবানরা অন্যান্য চিকিৎসা সেবা দিলে দেশ আরও এগিয়ে যাবে। এই ট্রাষ্টের এ কার্যক্রমের মাধ্যমে জেলাব্যাপী ব্যাপক স্বনাম অর্জন করেছে। এই কাজটি একটি সওয়াবের কাজ।
মবশ্বির-রাবেয়া ট্রাষ্টের চেয়ারম্যান সৈয়দ জুবায়ের আহমদের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, মৌভীবাজার পৌর সভার মেয়র মো. ফজলুর রহমান, বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতাল পরিচালনা পরিষদের সিনিয়রসহ সভাপতি লেখক, গবেষক ও মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট মুজিবুর রহমান মুজিব, চক্ষু হাসপাতাল পরিচালনা পরিষদের সহসভাপতি ডা. ছাদিক আহমদ, মৌলভীবাজার প্রেসক্লাবের সভাপতি আবদুল হামিদ মাহবুব, বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতালে সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মশাহিদ আহমদ, ট্রাষ্টের পরিচালক সৈয়দ হুমায়েদ আলী শাহীনও ট্রাষ্টের নির্বাহী পরিচালক এস এম উমেদ আলী।

ফ্রি চক্ষু শিবিরে দুই হাজার রোগীকে দৃষ্টিশক্তি পরীক্ষা শেষে এবছর চোখের ছানিপড়া ১৩৫ জন ও চোখের নেত্রনালী (ডিসিআর) ৬৭ জন রোগীকে অপারেশনের জন্য বাছাই করা হয়। এ ছাড়াও ৪১০ জনকে চশমাসহ অন্যান্যদের ঔষধ প্রদান করা হয়েছে।
১-৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ছানিপড়া রোগীদের বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতালে অপারেশন কাজ চলবে। চোখের নেত্রনালী (ডিসিআর) অপারেশন ১০ ফেব্রুয়ারি শুরু হবে এবং প্রতিদিন ১০ জন রোগীর অপারেশন করা হবে।
প্রসঙ্গত: ২০১৯ সালে চক্ষু শিবিরে ছানীপড়া রোগী ১৮৪ জনকে ও চোখের নেত্রনালী (ডিসিআর) ৭০ জন রোগীকে অপারেশন করা হয়।
এছাড়া ২০১৮ সালে চক্ষু শিবিরে ছানীপড়া রোগী ২১০ জনকে ও চোখের নেত্রনালী (ডিসিআর) ৭০ জন ২০১৭ সালে ছানীপড়া রোগী ১৯৫ জনকে ও চোখের নেত্রনালী (ডিসিআর) ৫১ জন রোগী, ২০১৬ সালে ১২০ জন ছানীপড়া, ২০১৫ সালে ১১৭ জন এবং, ২০১৪ সালে ৯০ জন ছানীপড়া রোগীকে অপারেশন শেষে চোখে লেন্স সংযোজন করা হয়।
মবশি^র রাবেয়া ট্রাষ্ট চক্ষু সেবার পাশাপাশি গৃহ নির্মান, রিক্সা বিতরণ, পবিত্র রমজান মাসে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ, হজ¦ প্রশিক্ষণ, অসহায় ও এতিমদের জন্য নগদ অনুদান প্রদানসহ আর্থ-মানবতার সেবায় বিভিন্ন কর্মকান্ড পরিচালনা করে আসছে।

 

শেয়ার করুন