ঈদের ছুটিতে চিরচেনা ব্যস্ত সিলেটের রাস্তা ফাঁকা।

রহিমা আক্তার ডলিঃ

আজ পবিত্র ঈদুল আজহা। মুসলমানদের ধর্মীয় দুই বড় উৎসবের একটি হচ্ছে ঈদুল আজহা। সারা দেশের ন্যায় সিলেটেও পালিত হচ্ছে ঈদুল আজহা। পরিবার পরিজনদের সাথে ঈদের ছুটি কাটাতে শহর ছেড়ে অনেকই এখন বাড়িতে। আর ঈদের ছুটিতে সিলেট শহর পুরো ফাঁকা।

কোলাহলমুখর সিলেটের প্রাণকেন্দ্র জিন্দাবাজার ও বন্দরবাজার। ব্যস্ততম পয়েন্ট আম্বরখানা, চৌহাট্টা, বন্দরবাজার, জেলরোড, লামাবাজার, রিকাবীবাজার। এই পয়েন্টগুলোতে প্রায় সময়ই চোখে পড়ে যানজটের দৃশ্য। এসব এলাকায় যানজটে পড়ে দুর্ভোগ পোহানো নগরবাসীর নিত্যদিনের সঙ্গী।

ঈদুল আজহা উপলক্ষে চিরচেনা সিলেট নগরী এখন ফাঁকা। শহরের রাস্তা জুড়ে নেই যানজট আর কোটি মানুষের আনোগোনা। নাড়ির টানে বাড়ি ফিরেছেন নগরবাসী। সিলেটের অধিকাংশ সড়কই একই অবস্থা। সবখানে সুনসান নীরবতা।

আজ শনিবার উদযাপিত হচ্ছে মুসলিম ধর্মালম্বীদের অন্যতম বৃহৎ ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল আযহা। দুপুর ১২টা থেকে চিরচেনা সিলেট নগরীর বিভিন্ন রাস্তা ও পয়েন্টগুলোতে ছিলো না সেই যানজটের দৃশ্য, নেই ব্যস্ততা, কোলাহল। শুধুই হাতে গোনা কিছু রিকশা ও সিএনজি চালিত অটোরিকশা দেখা গেছে রাস্তায়। অনেকে আবার স্বাচ্ছন্দে ঘুরে বেড়াচ্ছেন যানজট ও কোলাহলমুক্ত নগরীতে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, সিলেটের প্রানকেন্দ্র এলাকা বন্দরবাজার, জিন্দাবাজার, চৌহাট্টা চিত্র ছিল গতানুগতিক। তবে রাস্তায় গাড়ির সংখ্যা কম বলে যানজট ছিল না।

রিকশা চালকরা জানান, ঈদের দিন রাস্তা ফাঁকা থাকে। রাস্তায় গাড়ি বেশি থাকে না। পড়তে হয় না যানজটের কবলে। এই দিন রিকশা চালাতে ভালো লাগে। আবার অনেকে ঈদের বখশিস হিসেবে বেশি ভাড়া দিয়ে থাকেন।

এছাড়াও নগরীর বিলাশবহুল শপিংমল এবং ছোট বড় দোকান-পাটগুলোও বন্ধ থাকায় অনেকটা নীরব ছিলো নগরী। তবে নগরবাসী সকালে ঈদের নামাজ আদায় করে ব্যস্ত ছিলো কোরবানির পশু জবাই ও বণ্টনে।

জালালাবাদ বার্তা ডটকম/১আগষ্ট ২০২০/সিলেট ভিউ ডটকম/রহিমা ডলি।

শেয়ার করুন