কমলগঞ্জে যুবতীকে তুলে নিয়ে বাগানে বেঁধে ধর্ষণ

  • কমলগঞ্জ(মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি:
    মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে এক যুবতিকে বাড়ি ফেরার পথে তুলে নিয়ে পাহাড়ের টিলার বাগানের একটি ঘরে মধ্যে বেঁধে রেখে ধর্ষন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বাঁধা অবস্থায় যুবতি(১৭)কে এলাকাবাসী টিলার একটি ঘর থেকে উদ্ধার করেছে। পুলিশ অভিযুক্ত জুবায়েদ আলী(২৫)কে আটকের চেষ্টা চালাচ্ছে। নির্যাতিত যুবতি মৌলভীবাজার ২৫০ শষ্যা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। ঘটনাটি ঘটেছে ২৬ অক্টোবর রাতে উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের উত্তর কানাইদাসী গ্রামে। পরিবারে পক্ষ থেকে মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি চলছে।
    এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সোমবার রাতে উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের উত্তর কানাইদাসী গ্রামের মখদছ মিয়ার যুবতি মেয়ে(১৭) চাচার বাড়ি থেকে ফেরার পথে পার্শ্ববর্তী রাজকান্দি গ্রামের বশির উল­্যার পুত্র জুবাহিদ আলী(২৫) রাস্তা গতিরোধ করে তুলে নিয়ে পাহাড়ী টিলার উপর পরিত্যক্ত একটি ঘরে রশি দিয়ে বেঁধে রেখে ধর্ষণ করে। বাড়িতে না ফেরায় পরিবারের লোকজন মেয়েটিকে রাতে খুজতে থাকেন। মঙ্গলবার সকালে রাজকান্দি এলাকার আনু মিয়ার পরিত্যক্ত পাহাড়ী টিলার একটি ঘরে মেয়েটি রয়েছে বলে জানতে পেরে স্থানীয় লোকজনসহ পরিবারে সদস্যরা নির্যাতনের স্বীকার মেয়েটিকে বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে আসে। এলাকাবাসীর আসার খবর পেয়ে বখাটে যুবক পালিয়ে যায়। কমলগঞ্জ থানার ওসি তদন্তসহ জন্রপতিনিধরা ঘটনাস্থল পরির্দশন করেন। আহত মেয়েটিকে চিকিৎসার জন্য কমলগঞ্জ উপজেলা ৫০ শষ্যা হাসপাতালে নিয়ে গেলে কতর্ব্যরত ডাক্তার মৌলভীবাজার ২৫০ শষ্যা হাসপাতালে প্রেরণ করেন। মেয়েটি বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছে। পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত জুবাহিদ আলী(২৫) কে আটকের জন্য বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালাচ্ছে।
    স্থানীয় ইউপি সদস্য শুকুর আলী বলেন, ঘরে বাঁধা অবস্থায় নির্যাতিত মেয়েটিকে স্থানীয় এলাকাবাসীর সহায়তায় পরিবারে লোকজন উদ্ধার করেন।
    কমলগঞ্জ হাসপাতালের ইমাজেন্সীতে কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান, বিষযটি স্পর্শকাতর। তাই ভালো চিকিৎসার জন্য জেলা সদরে পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্ত জুবাহিদ আলী(২৫) পিতার সাথে কথা বলার চেষ্টা করলে মেঠোফোনে বন্ধ পাওয়া যায়।
    কমলগঞ্জ থানাও ওসি সুধীন চন্দ্র দাস বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরির্দশন করেছি এবং হাসপাতালে ভর্তি মেয়েটির বক্তব্য শুনেছি। আসামীকে গ্রেফতার করা চেষ্টা চলেছে।
শেয়ার করুন